ajkervabna.com
বৃহস্পতিবার ২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

টঙ্গীতে যুব মহিলালীগ নেত্রীর সংবাদ সম্মেলন

সুজন সারোয়ার,টঙ্গী | ১২ নভেম্বর ২০২০ | ২:০৯ অপরাহ্ণ | 163 বার

টঙ্গীতে যুব মহিলালীগ নেত্রীর সংবাদ সম্মেলন

গাজীপুরের টঙ্গীতে হয়রানিমূলক অপহরণ মামলার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছেন ৫০নং ওয়ার্ড আওয়ামী যুব মহিলালীগ নেত্রী শিল্পী আক্তার। বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় শালিকচূড়া এলাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান।
সংবাদ সম্মেলনে যুব মহিলালীগ নেত্রী শিল্পী আক্তার জানান, গত ৩০ জুন দত্তপাড়া লেদুমোল্লা রোডে আমার মায়ের বাসার আলমিরার ড্রয়ার ভেঙ্গে আটভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ১৫ হাজার টাকা নিয়ে যায় চোরচক্র। একপর্যায়ে আমি লেদুমোল্লা রোডের ব্যবসায়ী সবুজের কাছে জানতে পারি আমাদের বাড়ির ভাড়াটিয়া তালা চাবির মিস্ত্রী জালাল কিছু গহনা তার কাছে বন্ধক রেখেছে। পরে বাসায় খোঁজ নিয়ে জালালকে না পেয়ে চারদিকে খোঁজাখুজি করি। পরের দিন পহেলা জুলাই জালাল বাসায় আসলে তাকে স্বর্ণালঙ্কার ও টাকার কথা জিজ্ঞাসা করলে সে বিব্রত হয়ে পড়ে। পরে তাকে তার ভাড়া বাসায় আটকে রেখে বিষয়টি টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশকে অবহিত করি। খবর পেয়ে এলাকায় টহল ডিউটিরত এসআই শফিউল এসে জালালকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে চুরির কথা স্বীকার করে এবং স্বর্ণালঙ্কারগুলো আশুলিয়ার জিরাবো এলাকার রনির ভাই কাদেরের কাছে রয়েছে বলে জানায়। এসময় এসআই শফিউল আমাদেরকে বলে আপনারা জালালকে নজরদারিতে রাখেন আমি ওসি স্যারের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে আসছি। ওসি স্যারের অনুমতি নিয়ে আশুলিয়ার জিরাবোতে গহনা উদ্ধার করার জন্য যাব। ওইদিন তিনি না আসায় পরদিন এসআই শফিউলের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ওসি স্যার থানায় নেই আসলে কথা বলে আমি আপনাকে জানাবো। পরে গত ৬ জুলাই এসআই শফিউল আমাকে থানায় যেতে বললে আমি থানায় গিয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে ঘটনাটি বলি। এসময় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসআই শাহীন মোল্লাকে বিষয়টি দেখার দায়িত্ব দেন। একপর্যায়ে এডিসি শাহাদাত হোসেনকে বিষয়টি জানালে তিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম ও এসআই শফিউলকে আশুলিয়ার জিরাবো থেকে আসামি ধরার অনুমতি দেন। এঘটনায় গত ৬ জুলাই টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করি। একপর্যায়ে পুলিশ আসামী জালালকে তার বাসায় রেখেই রনির ভাই কাদেরকে ধরতে গেলে সে পালিয়ে যায়। আসামী জালালকে পুলিশই নজরদারিতে রাখার কথা বলে গত ১০ জুলাই উল্টো আমার বিরুদ্ধে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি হয়রানিমূলক অপহরণ মামলা দায়ের করা হয়। একপর্যায়ে পুলিশ আমার ছোট ভাই মুন্না ও সহকর্মি শিল্পীকে গ্রেফতার করে। চোরের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো আমার বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক অপহরণ মামলাটির পুণরায় সুষ্ঠু তদন্ত করার জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান তিনি।
Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ২:০৯ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১২ নভেম্বর ২০২০

ajkervabna.com |

advertisement
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
advertisement
আর্কাইভ
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
advertisement

©- 2021 ajkervabna.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।