ajkervabna.com
বৃহস্পতিবার ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নাসিরনগরে তরুণ লেখককে পিটিয়ে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক | ১১ নভেম্বর ২০২০ | ৩:৩১ পূর্বাহ্ণ | 24 বার

নাসিরনগরে তরুণ লেখককে পিটিয়ে হত্যা

নিজেদের স্বার্থে সরকারি খালে বাঁধ নির্মাণ করেন স্থানীয় কয়েকজন। এতে পানি নিষ্কাশন বাধাগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কায় এর প্রতিবাদ করেন সৈয়দ মোনাব্বির আহমেদ তনন (২৫) নামে এক তরুণ লেখক। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গত সোমবার দুপুরে তিনি হামলার শিকার হন। রাতে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা নেওয়ার পথে মারা যান।

মোনাব্বির আহমেদ তনন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের হরিপুর ইউনিয়নের আলিয়ারা গ্রামের সৈয়দ শিব্বির আহমেদের ছেলে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র ছিলেন। সৃজন সাহিত্য সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা এবং একুশে সৃজন ও দশ দিগন্ত নামে একটি সাপ্তাহিক লিটল ম্যাগের সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। এ ছাড়াও এ স্বপ্নবাজ তরুণ ছিলেন হরিপুর প্রভাতী ইসলামী কিন্ডারগার্টেন নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা।

নাসিরনগর থানার ওসি (তদন্ত) কবির হোসেন জানান, পূর্ব বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত সৈয়দ মোনাব্বির আহমেদকে ঢাকায় নেওয়ার পথে মারা যান। তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। কবির হোসেন আরও জানান, এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তোফাজ্জল নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করে দিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত ৭ নভেম্বর হরিপুর ইউনিয়নের আলিয়ারা গ্রামের ওসমান, মজনু ও মিল্লাত নামে কয়েকজন একটি সরকারি খালে বাঁধ নির্মাণ করেন। এর ফলে পানি নিষ্কাশন ব্যাহত হয়ে খালে জলাবদ্ধতার আশঙ্কায় দেখা দেয়। তাই এর প্রতিবাদ করেন মোনাব্বির। এ নিয়ে ওসমানের সঙ্গে তার বাগবিত-া হয়। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে বিষয়টির নিষ্পত্তির সিদ্ধান্ত হয়। তবে ওসমান ও তার সহযোগীরা বিষয়টি ভালোভাবে নেননি। সোমবার বিকালে ওসমানসহ তার ১০-১৫ জন সহযোগী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মোনাব্বিরের ওপর হামলা চালায়। এ সময় মোনাব্বিরকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে আরও তিনজন আহত হন। পরে গুরুতর আহত মোনাব্বিরকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান তিনি। অন্য আহতরা হলেন- ওই গ্রামের ফাইজুল (৩৫), সুমন (৩৪), নিহতের ভাই তন্ময় (১৭)।

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৩:৩১ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ১১ নভেম্বর ২০২০

ajkervabna.com |

advertisement
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
advertisement
আর্কাইভ
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
advertisement

©- 2021 ajkervabna.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।