ajkervabna.com
শুক্রবার ১৮ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিয়ের কথা বলায় প্রেমিকাকে মেরে বালুচাপা দিল প্রেমিক

অনলাইন ডেস্ক | ১৩ ডিসেম্বর ২০২০ | ৮:৫১ পূর্বাহ্ণ | 19 বার

বিয়ের কথা বলায় প্রেমিকাকে মেরে বালুচাপা দিল প্রেমিক

প্রেমিককে বিয়ের জন্য চাপ দেন প্রেমিকা ফাতেমা আক্তার। আর এ চাপ দেয়াই কাল হলো তার। হতে হলো বালুচাপা লাশ। ঘটনা এখানেই শেষ নয়, তাকে গলাটিপে হত্যার পর প্রেমিক ইউনুছ আলী নিজের বাড়ির পেছনে নির্মাণাধীন ঘরের মেঝেতে গর্ত করে লাশ বালু চাপা দেয়।

গ্রেফতারের পর প্রেমিক ইউনুছ আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

শনিবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ডে পিবিআই কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন পিবিআই এসপি মো. মনিরুল ইসলাম।

তিনি জানান, দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে গত ৮ ডিসেম্বর সিলেট জৈন্তাপুর বাংলাদেশ ভারত সীমান্ত এলাকায় এক ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে ইউনুছকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে লাশ গুমের ব্যবহৃত কোদাল। ভিকটিমের ব্যবহৃত মোবাইল সেট, সিম, জাতীয় পরিচয়পত্র, গলার হার, কানের ফুল, হাতব্যাগ, ওড়না গোপালদী বাজার গাজীপুরা ব্রিজ থেকে হাড়িদোয়া নদীতে ফেলে দিয়েছে বলে স্বীকার করে ইউনুছ।

ইউনুছ আলী আড়াইহাজার থানার মানিকপুর গ্রামের আবদুরের ছেলে। আর ফাতেমা আক্তার একই থানার গহরদী গ্রামের বিল্লাল হোসেনের মেয়ে।

মনিরুল ইসলাম জানান, নয় বছর মালয়েশিয়া থাকার পর ছুটিতে দেশে এসে ডিভোর্স প্রাপ্ত ফাতেমার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে ইউনুছ আলী। তারা জড়িয়ে পড়ে দৈহিক সম্পর্কে। প্রেম জানাজানি হয়ে পড়লে ইউনুছের পরিবার মেনে না নিয়ে অন্যত্র বিয়ে করানোর চেষ্টা চালায়। ভিকটিম গর্ভবতী হওয়ার আশঙ্কায় ইউনুছকে বিয়ে করার জন্য চাপ দেয়। কিন্তু ইউনুছ প্রকৃতপক্ষে বিয়ে করতে রাজি ছিল না।

গত ১০ আগস্ট বিকেলে ইউনুছ মোবাইল ফোনে ফাতেমার সঙ্গে কথা বলার জন্য ডেকে আনে। বিভিন্ন জায়গা ঘুরে সন্ধ্যার পরে ইউনুছদের নতুন বাড়ির পেছনে গাছ গাছালি বেষ্টিত জায়গায় নিয়ে রাত প্রায় ১০টার দিকে দৈহিক মেলামেশা করার পর কৌশলে ভিকটিমের পেছন দিক থেকে গলা চেপে ধরে শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে লাশ নির্মাণাধীন ঘরের মেঝেতে পুঁতে দেয়।

ঘটনার ৬ দিন পর ডালিম ঘরের কাজ করা অবস্থায় ১৫ আগস্ট  ভিকটিমের অর্ধ পচা লাশ পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ অজ্ঞাত হিসেবে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে।

এ ঘটনায় আড়াইহাজারের গোপালদী তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মুক্তার হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি করে হত্যা মামলা করেন। মামলা গ্রহণের ৪৩ দিনের মধ্যে পিবিআই হত্যার রহস্য উদ্‌ঘাটনসহ প্রধান আসামি ইউনুছকে গ্রেফতার করে।

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৮:৫১ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২০

ajkervabna.com |

advertisement
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
advertisement
আর্কাইভ
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
advertisement

©- 2021 ajkervabna.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।